Damini Sen

জন্ম হয়েছিলো হাত ছাড়াই, পা দিয়েই এঁকে গোটা বিশ্বের নজর করলেন দামিনী

নাম দামিনী (Damini Sen) বয়স উনিশ, বালিকা ছোটবেলা থেকেই জন্ম

করেছিলেন হাতছাড়া, জন্ম হয় রায়পুরে। ছোটবেলা থেকেই হাত না থাকার কারণে পা দিয়েই সমস্ত কাজ করতে অভ্যস্ত সে। চুল আঁচড়ানো থেকে শুরু করে পড়াশোনা করা এবং আঁকতেও পারে সে তার পা দিয়ে। যে কোনো প্রয়োজনেই সবকিছুই করতে পারে সে তার পা দিয়ে। স্কুলে যাওয়ার জন্য নিজেকে তৈরি করা থেকে শুরু করে সমস্ত কাজ একাই করে সে।

ছোটবেলা থেকেই জন্মহয় দুই হাত ছাড়াই। তবে তার এই শারীরিক প্রতিবন্ধকতার জন্য তিনি নিজেকে কখনোই ঘরের মধ্যে আটকে রাখেনি দামিনী। (Damini Sen) এই দামিনী প্রমান করে দিয়েছেন যে কিভাবে শারীরিক প্রতিবন্ধকতা থাকার কারণে নানান বাধা বিপত্তি সত্ত্বেও নিজের মনের জোরে সামনের দিকে এগিয়ে যেতে হয়।

Damini Sen Painting
Damini Sen Painting

নিজের পাকেই কাজে লাগিয়াছেন তার স্বপ্ন পূরণের জন্য, এখনো পর্যন্ত তিনি ৩৮ টি ছবি এঁকেছেন তার পায়ের সাহায্যেই। তার কাছথেকে জানাযায় পড়াশোনা ছাড়াও চিত্রঅঙ্কনে তার অনেক বেশি ঝোঁক রয়েছে। তাছাড়াও দশম শ্রেণীতে তিনি প্রায় ৮০% নম্বর পেয়েছেন (Damini)। সমস্ত পরীক্ষায় তিনি দিয়েছেন তার পায়ে সাহায্যে। হাত ছাড়া কিভাবে পাকে কাজে লাগিয়ে আঁকতে হয় এটি শিখিয়েছেন তার মা। সেই অর্থে বলতে গেলে তার মাই হলো তার একমাত্র শিক্ষক। পায়ের সাহায্যে স্কেচ পেন দিয়ে প্রথমে শেখা তার ওপরে আঁকিবুকি কাটছে বিষয়টি যখন তার মা-বাবার চোখে পড়ে তখন তারা বুঝতে পারেন যে দামিনী আঁকতে কত ভালবাসে।

আরো পড়ুন: হিন্দু মহিলার প্রাণ বাঁচাতে এগিয়ে এলেন এক মুসলিম যুবক

তার হাত নেই বলে তার পরিবারের লোক কিন্তু তাকে কখনোই বোঝা হিসেবে ভাবেননি। সর্বদা তারা ভেবে এসেছেন ঈশ্বরের অসীম কৃপা, তাই তারা দামিনীকে পেয়েছেন। পড়াশোনা আঁকা ছাড়াও তিনি তার দুপায়ের সাহায্যের রান্নাবান্নাও করতে পারেন। দুই হাত থাকা সত্ত্বেও যারা ভাবেন যে কিভাবে নিজের জীবনকে সুন্দর করে তোলা যায় বা যারা নিজেকে নিয়ে কষ্ট পান তাদের জন্য এক আদর্শ হতে পারে দামিনী।

আরো পড়ুন : রেল লাইন পড়ে যাওয়া বাচ্চাটিকে বাঁচিয়ে, নতুন জীবনদান দিলেন একজন পয়েন্টসম্যান

জীবন যে সবসময় নিজস্ব গতিতে সঠিক ভাবে চলবে তা নয়। কখনো কখনো জীবনে নানান রকম বাধা তৈরি হতে পারে তা হতে পারে জন্ম থেকেই অথবা পরবর্তীকালে কোন দুর্ঘটনায় জীবনের ছন্দপতন ঘটতে পারে। কিন্তু তা বলে পিছিয়ে আসলে চলবে না, নিজের স্বপ্নকে পূরণ করতেই হবে যেনতেন প্রকারেন। অন্তত উনিশ বছরের দামিনী সেটাই প্রমাণ করে দেখিয়েছে, তার পা দিয়ে লেখাপড়া করা দেখে অনেকেই ব্যাঙ্গার্থক সুরে হেসেছেন কিন্তু কোনো কিছুতেই পাত্তা না দিয়ে নিজের স্বপ্ন পূরণ করার উদ্দেশ্যে ছুটে চলেছে দামিনী ((Damini Sen))।

প্রতিদিনের ভাইরাল নিউস এর আপডেট পেতে ফলো করুন আমাদের ফেইসবুক পেজ ভিসিট করুন আমাদের ওয়েবসাইট